প্রহরী – Vehicle Tracking System (VTS) of Bangladesh

পড়তে লাগবে: 3 মিনিট

Traffic Jam কমান, সাবলীল ভাবে গাড়ি চালান

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে Traffic Jam একটি বড় সমস্যা। এই সমস্যাকে দূর করা বেশ কঠিন কাজ। ট্র্যাফিক জ্যাম নগরবাসীর স্বাভাবিক জীবন-যাত্রাকে ব্যাহত করে। ট্র্যাফিক জ্যামে পড়ে নাকাল হয়নি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দায়। ট্র্যাফিক জ্যামে পরে মানুষের মূল্যবান সময় ও কাজের বিশাল ক্ষতি হয়। এই বিভীষিকাময় যানজট কমাতে নানা ধরণের উদ্যোগ নেয়া সত্ত্বেও তা থেকে মুক্তি মেলেনি নগরবাসীর। যানজট এড়ানোর জন্য নানা কার্যকর পন্থা অনুসরণের পাশাপাশি ভিটিএস (Vehicle Tracking System) এর ব্যবহার নিশ্চিত করা উচিত। Traffic Jam কমানোর কিছু উপায় আপনাদের জন্য তুলে ধরা হল, দেখে নিন।

অন্যান্য গাড়ির সাথে  দূরত্ব রেখে গাড়ি চালান

রাস্তায় অন্যান্য গাড়ির সাথে দূরত্ব বজায় রেখে গাড়ি চালান। প্রতিযোগীতা করে গাড়ি চালাবেন না। গাড়ির স্পিড নির্দিষ্ট পরিমাণে রাখুন। হঠাৎ করে গাড়ির স্পিড বাড়াবেন বা কমাবেন না। ফলে জ্যাম ও দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা কম থাকবে। আপনার গাড়ির স্পিড নির্দিষ্ট পরিমাণের থেকে বেশি ছাড়িয়ে গেলে ভিটিএস (Vehicle Tracking System) এর মাধ্যমে মুঠোফোনে সতর্ক ম্যাসেজ পাবেন।

ট্র্যাফিক আইন মেনে চলুন

নগরের যানবাহন চালক ও পথচারীরা সুযোগ পেলেই ট্র্যাফিক আইন লঙ্ঘন করে। তারা রাস্তার ভুল সাইড দিয়ে গাড়ি চালায়, ট্র্যাফিক সিগন্যাল অমান্য করে, ফুটপাথ দিয়ে বাইক চালায় ইত্যাদি। এছাড়াও ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে পথচারীরা রাস্তার মাঝ দিয়ে রাস্তা পার হয়। ট্র্যাফিক আইন লঙ্ঘন করে এইসব কর্মকাণ্ড করার ফলে জ্যাম হয় এবং দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনাও বেড়ে যায়। আর তাইতো ট্র্যাফিক আইন মেনে গাড়ি চালান ও সাবধানে পথ চলুন। আর এতেই নিরাপদ হবে আপনার পথযাত্রা।

বার বার লেন পরিবর্তন করবেন না

রাস্তায় গাড়ি চালানোর সময় প্রয়োজন ছাড়া লেন পরিবর্তন করবেন না। অতিরিক্ত লেন পরিবর্তনের অভ্যাসের ফলে Traffic Jam এর পাশাপাশি দুর্ঘটনাও ঘটতে পারে। অন্য ড্রাইভারদের সঠিক লেনে আসতে দিন। এতে জ্যাম লাগানোর সম্ভাবনা কমে যাবে।

যেখানে সেখানে গাড়ি পার্ক করবেন না

রাস্তায় যেখানে সেখানে গাড়ি পার্ক করে Traffic Jam এর সৃষ্টি করবেন না। গাড়ি পার্ক করার নির্দিষ্ট স্থানেই গাড়ি রাখুন। পাবলিক বাস, লেগুনা অনেক সময় রাস্তার মাঝে থামিয়ে যাত্রী উঠায় নামায়। যার ফলে রাস্তা জুড়ে জ্যামের সৃষ্টি হয়, যা একেবারেই কাম্য নয়।

ড্রাইভিং করার সময় অমনোযোগী হবেন না

গাড়িতে বসে মোবাইল ব্যবহার বিশেষ করে খবর পড়া, ম্যাসেজ দেয়া, গল্প করা ইত্যাদি বন্ধ করুন। মনোযোগ দিয়ে আশেপাশে লক্ষ্য রেখে গাড়ি চালান।  Traffic Jam থাকলে সামনে তাঁকান, যেকোন সময় জ্যাম ছুটে যেতে পারে। জ্যাম দেখে অস্থির হয়ে বার বার হর্ন বাজাবেন না, এতে শব্দ দূষণও হয়।

গাড়ির যান্ত্রিক সমস্যা ঠিক করুন

গাড়ি চালানোর সময় হঠাৎ গাড়িতে কোন যান্ত্রিক সমস্যা দেখা দিলে ভয় পাবেন না। ঠাণ্ডা মাথায় গাড়ি রাস্তার একপাশে নিয়ে আসুন। মাঝপথে গাড়ি থামিয়ে জ্যামের সৃষ্টি করবেন না। আর আগে থেকে খেয়াল করে গাড়ির বিভিন্ন সমস্যাগুলো ঠিক করতে পারলে ভাল হয়। এছাড়াও ত্রুটিপূর্ণ যানবাহন নিয়ে রাস্তায় না বের হওয়াই ভালো। যদিও আমাদের দেশের চালকরা তা মেনে চলেন না। ফলাফল দুর্ঘটনা ঘটে এবং রাস্তায় জ্যামের সৃষ্টি হয়, যা খুবই দুঃখজনক ব্যাপার।

পাবলিক বাসে যাতায়াত করুন

পাবলিক বাসে করে আপনি যেকোন জায়গায় যেতে পারেন। নিজস্ব গাড়ি বাদ দিয়ে বাসে চললে জ্যাম অনেক কম হবে। কারণ একটি বাসে অনেক বেশি মানুষ যেতে পারে, যেটা  প্রাইভেট গাড়িতে সম্ভব না। আর প্রাইভেট গাড়িগুলো অনেক বেশি জায়গা নষ্ট করে একটি বাসের তুলনায়।

আরও দেখুনঃ যেভাবে নিরাপদে ড্রাইভিং (Safe Driving) করবেন, জেনে নিন কিছু টিপস

    গাড়ির সুরক্ষায় প্রহরী সম্পর্কে জানতে

    Share your vote!


    এই লেখা নিয়ে আপনার অনুভূতি কী?
    • Fascinated
    • Happy
    • Sad
    • Angry
    • Bored
    • Afraid

    মন্তব্যসমূহ

    Scroll to Top