প্রহরী – Vehicle Tracking System (VTS) of Bangladesh

keep in mind while driving in bangabandhu tunnel
পড়তে লাগবে: 3 মিনিট

বঙ্গবন্ধু টানেলে গাড়ি চালানোর সময় যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা জরুরী

কিছুদিন আগেই আমাদের দেশের বন্দরনগরী চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিত দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল” । ইতিমধ্যেই টানেলের গাড়ি চলছে পুরোদমে, কিন্তু টানেলের গাড়ি চালানোর সময় দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন অনিয়ম। কিছুদিন আগে আমরা দেখেছি টানেলে একটি দুর্ঘটনা ঘটে গেছে। এমন দুর্ঘটনা এড়াতে টানেলে গাড়ি চালানোর সময় কি কি বিষয়ে খেয়াল রাখা প্রয়োজন তা নিয়েই আজ আমরা আলোচনা করব। চলুন জেনে নেই টানেলে গাড়ি চালানোর কিছু নিয়ম সম্পর্কেঃ

১। গাড়ির হেডলাইট জ্বালান

একটি টানেলে প্রবেশ করার আগে গাড়ির হেডলাইট চালু করা অপরিহার্য। কারণ, গাড়ির হেডলাইটে আপনি সামনের গাড়িটি দেখতে এবং নিজে আরও সুন্দরভাবে গাড়ি ড্রাইভ করতে সক্ষম হবেন, বিশেষ করে যখন প্রথম টানেলে প্রবেশ করবেন, কারণ মানুষের চোখ হঠাৎ আলোর পরিবর্তনে অভ্যস্ত হতে সময় নেয়।

২। সরু পথ এড়িয়ে চলুন

সাধারনত টানেলের রাস্তাগুলো প্রচুর সরু আকারের হয়। প্রচলিত রাস্তার চেয়ে টানেলের রোডে বাজে ধরনের গ্রিপ সমস্যা থাকতে পারে। বিশেষ করে বৃষ্টির দিনে যখন টায়ার ভিজে যায় তখন চাকার স্পিড কন্ট্রোল করা খুব সহজ হয় না এবং দুর্ঘটনা ঘটে। এছাড়াও গাড়ির ব্রেকিং সিস্টেমের দূরত্বগুলোও প্রভাবিত হয়, তাই সামনের গাড়ি পিছনের গাড়ির চেয়ে নিরাপদ দূরত্বে রাখা এবং গাড়ি চালানোর সময় স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি মনোযোগ দেওয়া উচিত।

৩। নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন

সবচেয়ে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি যা একটি টানেলের ভিতরে দেখা দিতে পারে তা হল একটি বাম্পার-টু-বাম্পার ক্র্যাশ। টানেল একটি আবদ্ধ স্থানে থাকার কারণে, অন্যসব গাড়ির চলাচলের বিকল্প পথগুলো ব্যাপকভাবে কমে যায়, জরুরী পরিষেবা জাতীয় গাড়িসমূহের অ্যাক্সেস করতে একই পথ মেনে চলতে হয়। তাই গাড়ির চেইন সংঘর্ষ প্রতিরোধের সর্বোত্তম উপায় হল সামনের গাড়ির পিছনে নিরাপদ দূরত্বে থাকা।

৪। টানেলে প্রবেশ এবং প্রস্থানে সতর্কতা অবলম্বন

স্বল্প পরিমানের দৃশ্যমানতার কারণে টানেলে প্রবেশ করা এবং প্রস্থান করা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। প্রবেশ করার আগে আপনাকে অবশ্যই লাইট অন করতে হবে, আপনার সানগ্লাস খুলে ফেলুন (যদি আপনি সানগ্লাস পরে থাকেন), এবং অন্ধকার পথগুলোতে গতি কমিয়ে নিন।

৫। অগ্নিজনিত দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে যা করণীয়

অগ্নিজনিত বিষয় একটি অস্বাভাবিক পরিস্থিতি। তবে এই পরিস্থিতে নিচের টিপসগুলো অনুসরণ করে দেখতে পারেনঃ

  • অন্যান্য চালকদের সতর্ক করতে ইন্ডিকেটর লাইট চালু করুন
  • ইমারজেন্সি অ্যাক্সেসের দিকে গাড়িটিকে যতটা সম্ভব ডান দিকের কাছাকাছি রাখার চেষ্টা করুন।
  • এমন কোন উপায়ে পিছন ফিরবেন না বা দিক পরিবর্তন করবেন না যা দুর্ঘটনার কারণ হতে পারে যাবা পরিস্থিতিকে আরও খারাপ করে তুলতে পারে।
  • ইঞ্জিন বন্ধ করুন এবং চাবি সহ গাড়িটি ছেড়ে দিন যাতে দুর্ঘটনা এড়ানো সহজ হয়।

কর্ণফুলী টানেলে যেসব গাড়ি চলবে না!

বঙ্গবন্ধু টানেলের  প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী হারুন উর রশিদের মতে,  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান  টানেল দিয়ে মোটরসাইকেল, থ্রি-হুইলার চালানো নিরাপদ হবে না। দুই চাকা এবং তিন চাকার যানবাহন চলতে দেওয়া হবে না। এছাড়াও ডিজাইন অনুযায়ী টানেলের ভেতর ৮০ কিলোমিটার বেগে গাড়ি চলবে।

বঙ্গবন্ধু টানেলে কোন গাড়িতে কত টোল?

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, গাড়ি, জিপ বা পিকআপের জন্য ২০০ টাকা এবং মাইক্রোবাসের জন্য টোল ২৫০ টাকা। বাসের আসন ৩১ আসন বা এর কম হলে টোল ৩০০ টাকা, ৩২ আসন বা তার বেশি হলে ৪০০ টাকা এবং ৩-এক্সেল বাসের জন্য টোল ৫০০ টাকা।

ট্রাক-৫ টন পর্যন্ত ৪০০ টাকা, ৮ টন পর্যন্ত ৫০০ টাকা এবং ৮ থেকে ১১ টনের ট্রাকের টোল ৬০০ টাকা। মালবাহী ৩ এক্সেল ট্রেলারের টোল ৮০০ টাকা, ৪ এক্সেল ট্রেলারে ১ হাজার টাকা এবং ৪ এক্সেলের বেশি প্রতি এক্সেলের জন্য ১ হাজারের সঙ্গে ২০০ টাকা যোগ করে টোল দিতে হবে বলে প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে।

শেষ কথা

টানেল আমাদের সম্পদ। তাই টানেল ব্যবহারে আমাদের উচিত যথেষ্ট নিয়ম মেনে চলা। যাতে করে দুর্ঘটনা এড়ানো সম্ভব হয়। টানেলে গাড়ি চালানোর সময় আপনারা চাইলে সহজেই উপরে দেওয়া বিষয়গুলো মেনে চলতে পারেন।

শখের গাড়ির সকল তথ্য অ্যাপের মাধ্যমে পর্যবেক্ষণ করতে এবং গাড়ির সুরক্ষায় প্রহরী ব্যবহার করতে পারেন। এটি একটি ভেহিক্যাল ট্র্যাকার সার্ভিস (VTS) ডিভাইস যা সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি করেছে পাই ল্যাবস বাংলাদেশ লিমিটেড। প্রহরী – ভেহিক্যাল ট্র্যাকিং সিস্টেমে রয়েছে অ্যাপের মাধ্যমে ইঞ্জিন লক/আনলক করার সুবিধা, গাড়ির লাইভ ট্র্যাকিং আপডেট দেখা, এবং ট্রাভেল হিস্টোরি চেক করা সহ আরও অনেক সুবিধা বিস্তারিত জানতে দেখুন প্রহরী প্যাকেজ সমূহ।

    গাড়ির সুরক্ষায় প্রহরী সম্পর্কে জানতে

    Share your vote!


    এই লেখা নিয়ে আপনার অনুভূতি কী?
    • Fascinated
    • Happy
    • Sad
    • Angry
    • Bored
    • Afraid

    মন্তব্যসমূহ

    Scroll to Top