প্রহরী – Vehicle Tracking System (VTS) of Bangladesh

পড়তে লাগবে: 4 মিনিট

যে গাড়ি গুলোর পারফর্মেন্স গাড়িপ্রেমীদের হতাশ করেছিলো

সব সময় কি, সব কিছু ঠিক ভাবেই হয়! আসলেই হয় না! অনেক সময় দেখবেন যে খুব কাজ করে তার হাত দিয়েও একটা বিশ্রী কাজ হয়ে যেতে পারে! ধরেন আপনার ক্ষেত্রেই, আপনি কোনো কাজের জন্য বেশ প্রশংসা পান, কিন্তু সব কাজই যে প্রশংসা পাবে তা কিন্তু নয়! কোনো না কোনো কারণে আপনার কাজ নিন্দিত ও হতে পারে,মানুষের ভালো না ও লাগতে পারে! আসলে ভালো লাগাটাই আপেক্ষিক! পৃথিবীর সব কিছুর ক্ষেত্রেই এমনটা ঘটে! গাড়ির ক্ষেত্রেও কিন্তু এর ব্যাতিক্রম নয়! প্রসিদ্ধ হওয়া সত্ত্বেও অনেক সময় হতাশ করে ফেলে কিছু উৎপাদিত গাড়ি! ইতালির দিকেই যদি আমরা তাকাই, তাহলে দেখতে পাবো গাড়ি উৎপাদনের দিক থেকে দেশটি বেশ ঐতিহ্যবাহী। শুধু মাত্র সাধারণ গাড়ি নয়, বিলাসবহুল,দৃষ্টিনন্দনীয়,অভিরুচি সম্পূর্ন গাড়ি তৈরির ক্ষেত্রেও ইতালি সামনে থেকেই নেতৃত্ব দিয়ে! একদিকে নিজেদের ইতিহাস ঐতিহ্য, রোমান সম্রাটরা তাদের কৃতিত্ববলে বিখ্যাত হয়েছেন পৃথিবীব্যাপী! ইতালির গাড়ি ইন্ড্রাস্টিও বিখ্যাত হয়েছেন পৃথিবী জুড়ে! কিন্তু কিছু গাড়ি আসলেই হতাশ করেছে, যা কোনো না কোন দিক দিয়ে সামঞ্জস্যতা রক্ষা করতে পারেনি। এরকম কিছু গাড়ি নিয়েই আমাদের আজকের আয়োজন।
১০) ISo Grifo
কিছু গাড়ি রয়েছে, যা সমন্বিত ভাবে গড়া! The Grifo হচ্ছে এমনই! Grifo ছিলো আমেরিকান পাওয়ার এবং ইটালিয়ান ডিজাইনের এক আদর্শ সমন্বয়! দুই সিটের মাসকুলার সহ এই সুপারকারের বাহিরের প্রদর্শন এবং Powertrain রেসিংকারের মতো! Grifo এর Featured হচ্ছে Pressed Steel Unibidy.
৯) Ferrari 348
২সিটের Ferrari 348, 1989 থেকে 1995 পর্যন্ত উৎপাদিত হয়েছিলো। তবে এই গাড়িটিও হতাশ করেছিলো,এটির উৎপাদন এবং রিভিও এর হিসেবে। গাড়ি ও ড্রাইভার কমপক্ষে দুইবার করে টেস্ট করে সুপারকারের। প্রথম, চারটি হাইপারফরম্যান্সের সুপারকারের তুলনা করা। এদের মধ্য Ferrari চতুর্থ স্থান অধিকার করেছিলো। ১৯৯১ সালের সেপ্টেম্বরে Car and Driver আরো একটি টেস্ট কম্পারিজন এর আয়োজন করে 348s এর পারফরম্যান্স সেকেন্ড রেটের ছিলো!
৮) Covini C6w
আচ্ছা ছয় চাঁকার গাড়ি দেখেছেন কখনো? হয়তো বা শুনেন নি যে ছয় চাঁকার গাড়ি থাকতে পারে। তবে জেনে রাখুন Covini C6W ই পৃথিবীর একমাত্র লিগেল স্ট্রিট সুপারকার। গাড়িটির ডিজাইন একটি তত্ত্বের ভিত্তিতে গড়ে উঠেছিলো যা অতিরিক্ত আসন এবং সামনের দিকে অতিরিক্ত চাঁকাকে সমর্থন করে। ছয় চাঁকা ছয়টি Break rotors ও দেয় এবং ব্রেকিং পারফরম্যান্সকে শক্তিশালী করে। 4.2 liter V8 Producing 500 hp এর সুসজ্জিত এটিকে পারফরম্যান্স এর দিক থেকে সুপারকার করে তোলে। এটির দাম 650,000 ডলার হওয়া সত্ত্বেও C6w প্রতিযোগিতায় কঠিন সময় পার করেছে এর দাম এর দিক থেকে।
৭) Lamborghini Countach
মিডইঞ্জিন কার এটি! এটি ১৯৭৪ থেকে ১৯৯০ পর্যন্ত পুনারাবৃত্তি হয়ে আসছে, কিন্তু সব সময় একই Scissor এর দরজা বিশিষ্ট! প্রতিটি পরিবর্তনই এসেছে সুপারকার কোম্পানিগুলোর সাথে প্রতিযোগিতা করে। এর একটি উদাহরন হচ্ছে Countach Quattro ডিজাইন হয়েছিলো Ferrari Testarossa এর সাথে প্রতিযোগিতা করে। এর বহিরাগত স্টাইল এবং হাইপারফরম্যান্স হলেও Countach বেশ কিছু ত্রুটি রয়েছে।
৬) Cizeta Moroder V16T
Ferrari Testarossa এবং Lamborghini Diablo এর উপাদানের সমন্বয়ে Cizeta Moroder V16T উৎপাদিত। এটির 6.0 liter v16 Producing 560 hp কার্যক্ষমতা। ইঞ্জিনের অসাধারণ পারফরম্যান্স সত্ত্বেও উৎপাদন খরচ অনেক বেশি হওয়ায় এটির একটি বড় ধাক্কা। এটির প্রতিদ্বন্দ্বী গাড়ি গুলোর তুলনায় এর উৎপাদন খরচ অনেক বেশি। এই কোম্পানি আরো কয়েকটি অর্থনৈতিক সমস্যায় জর্জরিত হয়। Cizeta অটোমোবাইল নিজেদেরকে দেউলিয়া ঘোষণা করে ১৯৯৪ সালে মাত্র ১৯ ইউনিট উৎপাদনের পর।
৫) Lamborghini Urraco
১৯৭৩ সালে Lamborghini তাদের কাস্টমার সম্প্রসারণের জন্য পথ খুঁজছিলো এবং অর্থনৈতিক দিক থেকে অগ্রসর হতে চেয়েছিলো। লো বাজেটের Urraco ছিলো তাদের সমাধান। তা সত্ত্বেও এই পরিকল্পনা সফল হয়নি, এবং ৬ বছরে মাত্র ৮০০ গাড়ি উৎপাদিত হয়।
৪) Maserati Merak
১৯৭০ এর দশকে The Merak, Lamborghini, Urraco এর সাথে তুলনা করেই Maserati তৈরি করে। এটির ডিজাইন করে Italdesign engineer Giorgetto Giugiaro. 3.0 liter V6 Producing 190hp Merak এর জন্য নির্ধারণ করা হয়। এতসব সত্ত্বেও ইঞ্জিনের দুর্বল পারফরম্যান্সিং এবং খুঁতখুঁতে হাইড্রোলিক ব্রেকিং সিস্টেম এর কারনে সেই সময়কার অন্যান্য গাড়ির তুলনায় খুব বেশি দিন টিকে থাকতে পারে নি।
৩) Ferrari Mondial
ফেরারী কিছু গাড়ী নিদর্শনমূলক সুপারকার উৎপাদন করেছে এবং এর মধ্য অন্যতম হলো Mondial। এটির ফিচার অনেক বেশি আকর্ষণীয় হলেও পাওয়ার এর দিক থেকে কিছুটা অভাব রয়েছে। DoHe 16 valve 3.ol v8 সংযুক্ত থাকা সত্ত্বেও কেবল মাত্র ২০৫ হর্স্পাওয়ার শক্তি উৎপন্ন করে। এটি ১৩৮ কিমি/ঘন্টা স্পিডে ৯.৩ সেকেন্ড এ ০-৬০ কিমি/ঘন্টা তে যেতে পারে।
২) De Tomaso pantera
৭০ এর দশকের আরো একটি গাড়ী, যা তখনকার কিছু গাড়ির মতোই হতাশ করেছিলো মানুষদের। V8 engine এটির পারফরম্যান্সকে তুলনা করেছিলো Maserati, lamborghini, এবং Ferrai এর সাথে। এটির টপ স্পিড ১৫০ কিমি প্রতিঘন্টা।  ৫.৫ সেকেন্ডে এ যায় ৬০ কিমি/ঘন্টা এবং ১৩ সেকেন্ডে পৌঁছাতে পারে সোয়া মাইল। তা সত্ত্বেও এই কারটি তৈরির কোয়ালিটি হাস্যকর ছিলো কিছুটা,এবং অন্যান্য কিছু কারণে এটি নির্ভরযোগ্যতার দিক থেকে খুব বেশি আস্থা অর্জন করতে পারে নি।
১) Lamborghini Espode
কিছু সুপারকার এর ব্যাপারে অভিযোগ করা হয়ে থাকে যে পেছনের সিট ছোট কিংবা বসার ক্ষেত্রে অপর্যাপ্ত। কিন্তু Espade হচ্ছে তার ব্যতিক্রম, এটি পেছনের সিটে আরামদায়ক রাইড এর নিশ্চয়তা দেয়। এটির স্বর্ণযুগ বলা যায় ১৯৬৮ থেকে ১৯৭৮ পর্যন্ত। নির্ভরযোগ্যতার দিক থেকে কিছু গুরুত্বপূর্ন দুর্বলতা রয়েছে এটির। সেই সাথে Classic Motoring বলছে যখন পূর্বের মডেল কিনতে যাবে, তখন ক্রেতাকে সতর্ক থাকতে হবে।

    গাড়ির সুরক্ষায় প্রহরী সম্পর্কে জানতে

    Share your vote!


    এই লেখা নিয়ে আপনার অনুভূতি কী?
    • Fascinated
    • Happy
    • Sad
    • Angry
    • Bored
    • Afraid

    মন্তব্যসমূহ

    Scroll to Top