প্রহরী – Vehicle Tracking System (VTS) of Bangladesh

পড়তে লাগবে: 5 মিনিট

গাড়িতে দুর্গন্ধ দূর করতে কিছু কার্যকরী টিপস

গাড়ি এমন একটি যানবাহন, যা মানুষ একটু আরামে যাতায়াত করতে ব্যবহার করে। রাস্তায় স্বস্তিতে চলার একটি মাধ্যম হিসেবে ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার করেন অনেকেই। আর এই গাড়িতে বসে যদি আপনার অস্বস্তি বোধ হয় তাহলে গাড়িতে চড়াটা পরিণত হবে চরম দুর্ভোগে। গাড়িতে অস্বস্তির অন্যতম একটি কারন হলো গাড়িতে দুর্গন্ধ। গাড়ির ভিতরে বিভিন্ন কারনে দুর্গন্ধ হতে পারে। কীভাবে গাড়িতে দুর্গন্ধ হলে তার উৎপত্তিস্থল খুঁজে বের করবেন, ও দূর করবেন সেই উপায়গুলো বিস্তারিত জানব।

খুঁজতে হবে দুর্গন্ধের উৎপত্তিস্থল

দুর্গন্ধ কোথা থেকে আসছে তা আগে বুঝতে হবে, খুঁজে বের করতে হবে দুর্গন্ধের উৎপত্তিস্থল। যদি দুর্গন্ধের উৎসটি খুজে না পাওয়া যায় তাহলে তার সমাধান করা কঠিন। তাই গন্ধের ধরন দেখেই বুঝতে হবে গন্ধের উৎপত্তিস্থল।

মিষ্টি গন্ধ

গাড়ির ভেতরে যদি মিষ্টি কোন গন্ধ পাওয়া যায় তাহলে বুঝতে হবে হিটার অংশে কোন লিকেজ হয়েছে। প্রথম প্রথম গন্ধটা মিষ্টি লাগলেও পরে এটি খারাপ গন্ধে পরিণত হতে পারে।  তাই এই গন্ধের  উৎসটি খুজে বের করে দ্রুত লিকেজ গুলো সারতে হবে।

পুরান/ভ্যাপ্সা গন্ধ

জানালা বা অন্য কোথাও পানি লিকেজ হলে গাড়ির মধ্যে পুরান বা ভ্যাপ্সা গন্ধ হতে পারে। এই সমস্যা সমাধানের জন্য অবশ্যই খুঁজে বের করতে হবে কোথায় পানি লিক করছে এবং দ্রুত এর সমাধান করতে হবে।

টক গন্ধ

ক্লাচ পুড়ে গেলে বা ভেঙ্গে গেলে টক গন্ধ বের হতে পারে।  ক্লাচের এরকম অবস্থায় তা খুলে ফেলা বা পালটানো উচিৎ।

সালফারের গন্ধ

ম্যানুয়াল ট্রান্সমিশন আর ট্রান্সফার কেস অয়েল যখন পুরানো হয়ে যায়, তখন পচা ডিমের মত গন্ধ হয়।

গ্যাসের গন্ধ

গাড়ির যদি কারবুরেটর থাকে, তাহলে গাড়ির স্টার্ট অফ করার পর একটা গ্যাসের গন্ধ পাওয়া যাবে। আর যদি গাড়িটি নতুন হয় আর এরকম গন্ধ হয়, তাহলে গ্যাসের কোন সমস্যা আছে এবং যেটা দ্রুত ঠিক করা উচিৎ।

পোড়া গন্ধ

অনবরত তেল পরতে থাকলে একটা পোড়া গন্ধ বের হয়।

গাড়ির যে জায়গাগুলো পরিষ্কার করতে হবে

গাড়িতে বিশেষ কিছু জায়গা থাকে যা নিয়মিত পরিষ্কার করতে হয়। তানাহলে গাড়িতে দুর্গন্ধ রয়েই যায়। জায়গাগুলো হচ্ছে-

  • সীটের নিচে

সীটের নিচে সহজে কারো চোখ যায়না কিন্তু সীটের নিচে অবশ্যই পরিষ্কার করতে হবে।

  • ম্যাট/ কার্পেটের নিচে

গাড়ির ভেতর সবথেকে বেশি ময়লা হয় ম্যাট বা কার্পেটের নিচে। আর দুর্গন্ধ তৈরির আরেকটি জায়গা হচ্ছে কার্পেট।

  • কাপ হোল্ডার

যেখানে কাপ বা পানির বোতল রাখা হয় সেখানে প্রচুর ময়লা হয়। সেই জায়গাটা পরিষ্কার রাখলে দুর্গন্ধ থেকে বাঁচা যাবে।

  • ড্যাশ বোর্ড

যেহেতু ড্যাশ বোর্ড টা থাকে একদম সামনেই থাকে আর আমরা অনেকেই ড্যাশ বোর্ডে অপ্রয়োজনীয় জিনিস রাখি।  ড্যাশ বোর্ড পরিষ্কার রাখলে অনেক ক্ষেত্রে দুর্গন্ধ থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি পাওয়া যায়।

  • অ্যাশ ট্রে

গাড়িতে বসে অবশ্যই ধূমপান করা উচিৎ না। আর যদি কেউঁ করেও থাকে তাহলে ছাই ফেলার জায়গাটা ভালভাবে পরিষ্কার রাখতে হবে।

  • স্টিয়ারিং হুইল

গাড়িটি সারাক্ষন চালানোর সময় স্টিয়ারিংটি ধরে রাখতে হয়। মানুষের হাতের ঘাম, ময়লা সব স্টিয়ারিং এ লেগে যায়। আর অনেকদিন ব্যবহারের হয় দুর্গন্ধ।  তাই স্টিয়ারিং টি নিয়মিত পরিষ্কার বা কভার দেওয়া উচিৎ।

  • গিয়ার স্টীক

গিয়ার স্টীক অনেক সময় ময়লা হতে পারে তাই ।গিয়ার স্টীকটি কভার দিয়ে রাখতে হবে।

  • সীট পকেটের ভিতর

আমরা অনেক সময় সীট পকেটে অনেক ধরনের জিনিস রাখি। যেগুলো পরে সীট পকেটের ভিতর দুর্গন্ধ হতে পারে।

  • গ্লাভস কমপার্টমেন্ট

গ্লাভস  কমপার্টমেন্টে ময়লা জমার আগেই পরিষ্কার করা উচিৎ।

  • ট্রাংকের ভিতর

ট্রাংকের ভিতর ময়লা পরিষ্কার করা উচিৎ । আর লক্ষ্য রাখতে হবে এই জায়গায় যেন কোন কিছু জমে না থাকে।

  • মাঝখানের সীট যেগুলো ভাজ করা যায়

গাড়ির মাঝখানের যে সীটগুলো ভাজ করা যায় সেগুলোর ভাজে ময়লা জমতে পারে,এই ময়লা গুলো পরিষ্কার করতে হবে।

গাড়ি পরিষ্কারের আরো কিছু পদ্ধতি

অনেক সময় দেখা যায় গাড়িটি পরিষ্কার করার পরও দুর্গন্ধ থেকে যায় ।  সেক্ষেত্রে আর কিছু উপায় আছে যার মাধ্যমে গাড়ির ভেতর দুর্গন্ধ দূর করা যায়। আসুন দেখে নেই কি কি উপায়ে দুর্গন্ধ দূর করা যায়-

ভ্যাকুয়াম

বেশিরভাগ ময়লা গাড়ির  ভেতরে কাপড়ের মধ্যে লেগে থাকে। আপনি এই ময়লা খুব সহজেই ভ্যাকুয়াম দিয়ে তুলে ফেলতে পারবেন।  কাঁদা ,পানি যুক্ত যেকোনো ধরনের ময়লা হোকনা কেন ভ্যাকুয়াম ক্লিনার দিয়ে পরিষ্কার করা সম্ভব।

এয়ার ফ্রেশনার

এয়ার ফ্রেশনার সব সময় গাড়িতে দুর্গন্ধ দূরীকরণে বড় ভুমিকা পালন করে। ঘরে বা গাড়িতে এয়ার ফ্রেশনার সবসময় কাজ করে।

হোয়াইট ভিনেগার

হোয়াইট ভিনেগার হচ্ছে বড় সমস্যার বড় সমাধান।  একটি স্প্রে বোতলে এক অংশ ভিনেগার আর দুই অংশ পানি দিয়ে ভালভাবে নেড়ে নিতে হবে।  এই মিশ্রন টি তখন একটি প্রাকৃতিক  অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়া ও অ্যান্টি ফাঙ্গাল এর কাজ করে।  আর এর মাধ্যমে ফাঙ্গাস পরিষ্কার করা যায়। এবং এর মাধ্যমে যেকোনো কাপড়ের,চামড়ার উপরে পড়া দাগ উঠানো জাবে। আবার সিগারেটের গন্ধও এর মাধ্যমে দূর করা যায়।

এসেন্সিয়াল অয়েল

এসেন্সিয়াল অয়েল ২০-৩০ ফোটা পানির সাথে মিশিয়ে ঝাকিয়ে নিলে এটি একটি ভাল ক্লিনার হয়ে যায়।  সাথে বেকিং সোডাও মিশিয়ে নেওয়া যায়।

বেকিং সোডা ও কিটি লিটার

বেকিং সোডা দিয়ে যেকোনো জায়গার যেকোনো দাগ খুব সহজেই উঠিয়ে ফেলা যায়। বেকিং সোডার সাথে এসেন্সিয়াল অয়েল, হোয়াইট ভিনেগার এসব মিশিয়ে নিতে হয়। তাহলে মিশ্রন টি ভাল হয় ও দ্রুত কাজ হয়। আর কিটি লিটার হল বিড়াল বা কুকুরের বর্জ্য পরিষ্কারক ।  এটা দিয়েও খুব ভাল ভাবে গাড়ি পরিষ্কার করা ও দুর্গন্ধ মুক্ত রাখা যায়।

চারকোল

চারকোলের মাধ্যমেও গাড়িতে দুর্গন্ধ হলে তা দূর করা যায়। কিছু চারকোল নিতে হবে আর গাড়ির মধ্যে চার পাঁচ দিনের জন্য ফেলে রাখতে হবে।   অ্যাক্টিভেটেড  চারকোল (যেকোনো সুপার শপে পাওয়া যাবে) ঘাম, খাবারের গন্ধ বা ফাঙ্গাসের গন্ধ দূর করতে সবচেয়ে কার্যকর।

জিওলাইট

যেকোনো সুপার শপের পোষা প্রানির জিনিস যেখানে পাওয়া যায় সেখানে জিওলাইট পেয়ে যাবেন।  এটি একটু দামি হলেও দুই থেকে তিন বার ব্যাবহার করা যায়।  জিওলাইট একবার ব্যবহারের পর একটি ট্রে তে রোদের আলোতে  কিছুক্ষন রেখে দিলে তা আবার ব্যবহার করার জন্য উপযোগী হয়ে ওঠে।

কার্পেট  ক্লিনার

বাজারে বিভিন্ন ধরনের কার্পেট ক্লিনার পাওয়া যায়। কার্পেট ক্লিনার দিয়ে যেকোনো ময়লার গন্ধ দূর করা সম্ভব।

ওজোন শক ট্রিটমেন্ট

ওজোন শক ট্রিটমেন্ট একদম শেষে করা হয় । এর মাধ্যমে ব্যাকটেরিয়া মারা হয়। এছাড়া গাড়ির ভিতর তৈরি হওয়া বিভিন্ন পোকামাকড় মেরে ফেলা হয়। আর গাড়ির দুর্গন্ধ দূর করা হয়।

প্রফেশনালের সাহায্য

যদি এত কিছুতেও কাজ না হয় তাহলে অবশ্যই আপনাকে একজন গাড়ি বিশেষজ্ঞের সাহায্য নিতে হবে।

প্রাকৃতিক উপায়ে গাড়িতে দুর্গন্ধ দূর করা যায়

প্রাকৃতিক ভাবে বা ঘরে থাকা কিছু উপাদান দিয়েই দূর করতে পারেন গাড়ির দুর্গন্ধ। উপাদানগুলো হলো-

লবঙ্গ– লবঙ্গ তো সবার রান্নাঘরেই পাওয়া যায়। লবঙ্গ গুড়া করে একটি ছিদ্র যুক্ত কৌটায় ভরে গাড়িতে রাখলে গাড়ির দুর্গন্ধ কিছুটা কমবে।

মেন্থল– মেন্থলের একটা টুকরা বা মেন্থল জাতীয় কিছু গাড়ির মধ্যে রেখে দিলে গাড়ির দুর্গন্ধ দূর করা সম্ভব।

ড্রায়ার শীট– ড্রায়ার শীট দিয়ে ঘরে অনেক রকম কাজ করা যায়। ড্রায়ার শীট দিয়ে গাড়ির দুর্গন্ধও দূর করা যায়।

ইউক্যালিপটাস– ইউক্যালিপটাস গাছ তো মোটামোটি সবার বাসায়ই থাকে। কয়েকটি ইউক্যালিপটাসের পাতা গাড়িতে রেখে দিলে গাড়ির ভেতরকার দুর্গন্ধ দূর হবে।

লেবুর পাতা– লেবুর পাতায় যে অ্যাসিডিক উপাদান থাকে তা দিয়ে যেকোনো জায়গার দুর্গন্ধ দূর করা যায়।

চা গাছের তেল– টি অয়েল বা চা গাছের তেল গাড়িতে রাখলেও গাড়ির দুর্গন্ধ দূর হয়।

রোজমেরি– রোজমেরি একটি পাতা। এই পাতার কয়েকটি গাড়িতে রাখলে গাড়ির মধ্যকার দুর্গন্ধ দূর করা সম্ভব।

নিজেও বানিয়ে নিতে পারেন দুর্গন্ধ দূর করার উপাদান

  • একটি কাঠের কাপড় আটকানোর ক্লিপে আঠা দিয়ে ছোটো পম পম বা তুলার বলে একটু এসেন্সিয়াল অয়েলের ফোটা দিয়ে আটকে গাড়ির সামনে ঝুলিয়ে দিলে অনেক্ষন এর সুঘ্রান থাকবে।
  • একটি কাঁচের জারে কিছু বেকিং সোডার সাথে এসেন্সিয়াল অয়েল মিলিয়ে রাখতে হবে আর উপরে একটু জায়গা খোলা রাখতে হবে। তাহলে অনেক্ষন ঘ্রান থাকে।
  • এসেন্সিয়াল অয়েলের কিছু ফোটা দিয়ে চাল মিশিয়েও সুগন্ধি বানানো যায়।
  • রাবিং অ্যালকোহল, এক চিমটি লবণ আর এসেন্সিয়াল অয়েল মিশিয়ে এয়ার ফ্রেশনার বানিয়ে নেয়া যায়।

গাড়িটিকে সবসময় ঝকঝকে ও সুন্দর ভাবে রাখলে আপনি প্রফুল্ল  ও প্রশান্ত মনে গাড়ি চালাতে পারবেন। এবং গাড়ির ভেতরকার পরিবেশ মনোরম থাকলে আপনি গাড়ি চালাতে সম্পূর্ণ মনোযোগও দিতে পারবেন। তাই চেষ্টা করা উচিৎ গাড়িটি যেন সব সময় পরিষ্কার ও দুর্গন্ধ মুক্ত থাকে।

    গাড়ির সুরক্ষায় প্রহরী সম্পর্কে জানতে

    Share your vote!


    এই লেখা নিয়ে আপনার অনুভূতি কী?
    • Fascinated
    • Happy
    • Sad
    • Angry
    • Bored
    • Afraid

    মন্তব্যসমূহ

    Scroll to Top