গাড়ির স্টিকার তুলে নেয়ার কিছু সহজ টিপস

মানুষ চায় তার  শখের গাড়ি দেখতে একটু সুন্দর দেখাক, তাই অনেকে অনেক সময় গাড়িতে বিভিন্ন স্টিকার ব্যবহার করেন।নিজের পছন্দের কোন ক্যারেক্টার বা কোন লোগো। আবার অনেকে কোন সিকিউরিটি সার্ভিসে  গাড়ির কাজ করালে কোম্পানীর প্রচারের স্বার্থে গাড়িতে তারা স্টিকার লাগিয়ে দেয়। গাড়ির স্টিকার প্রথমে দেখতে ভাল লাগলেও একটা সময় পরে যেয়ে আর ভালো লাগে না। হয়তো ময়লা হয়ে যায় বা একপাশ থেকে উঠে যায়। এমতাবস্থায় আমরা চাই স্টিকার পুরোপুরি তুলে ফেলতে।

এক সময়কার বহুল জনপ্রিয় ব্যাটম্যান স্টিকার

আপাতদৃষ্টিতে, স্টিকার তোলা খুব সহজ মনে হলেও গাড়ির স্টিকার তুলে নেওয়াটা অনেক কঠিন কাজ। অনেক সময় স্টিকার টেনেটুনে তুলে ফেললেও এর আঠার দাগ বিশ্রীভাবে লেগে থাকে। বিশেষ করে গাড়ির বাম্পারে থাকা স্টিকার যেগুলো বছরের পর বছর গাড়ির সঙ্গে লেগে থাকে।  গাড়ির স্টিকার তুলতে রীতিমত মুশকিলে পরতে হয়। অনেকের গাড়ির গায়ে, উইন্ড শিল্ডে , জানালায় , ড্যাশ বোর্ডে ইত্যাদি জায়গায় স্টিকার থাকে । আজকে আমরা জানব কীভাবে গাড়ি থেকে খুব সহজেই স্টিকার তুলে নেওয়া যায়।  আর তোলার সময় কোন রকম দাগ না রেখে গাড়ি থেকে সহজেই স্টিকার তুলে নেওয়ার কিছু সহজ টিপস – 

উপাদান

প্রথমেই আপনাকে জানতে হবে আপনি আপনার গাড়ির কোন অংশ থেকে স্টিকার তুলে ফেলতে চাচ্ছেন। বিভিন্ন অংশ থেকে স্টিকার তোলার সময় বিভিন রকম উপাদান ব্যবহার করা হয়ে থাকে। যেমন-  বাম্পার থেকে স্টিকার তোলার সময় এক রকম টুলস আবার উইন্ড শিল্ড থেকে স্টিকার তোলার সময় এক রকম টুলস। তার আগে জেনে নিন গাড়ির স্টিকাতোলার জন্য আপনার সঙ্গে কি কি উপাদান থাকতে হবে-

  • হেয়ার ড্রায়ার
  • রেজর ব্লেড
  • ক্রেডিট কার্ড (পুরোনো)
  • পরিষ্কার কোন কাপড়
  • গ্লাস ক্লিনার
  • ডিটেইলিং স্প্রে
  • অ্যাডহেসিভ রিমুভার
হেয়ার ড্রাইয়ার দিয়ে স্টিকার তোলা

পদ্ধতি

১। প্রথমেই দেখে নেবেন যে অংশ থেকে আপনি গাড়ির স্টিকাতুলবেন সে অংশ যেন অবশ্যই পরিষ্কার হয়। সব থেকে ভালো হয় যখন গাড়ি ধোঁয়া হয় এরপর স্টিকার তোলার কাজ শুরু করলে।

২। হেয়ার ড্রায়ার প্লাগ করে হিট দেবেন। স্টিকারের গায়ে সোজাসুজি ভাবে বাতাস না দিয়ে একটু কৌণিক ভাবে দেয়ার চেষ্টা করুন। হিট দেয়ার সময় কয়েক ইঞ্চি দূর থেকে বাতাস দেবেন। এতে গাড়ির পেইন্টের সমস্যা হবেনা।

৩। স্টিকারের ঠিক মাঝ বরাবর কয়েক সেকেন্ড বাতাস দেয়ার চেষ্টা করুন এবং খেয়াল রাখবেন বের হওয়া বাতাস যেন অবশ্যই গরম হয়। এরপর চেষ্টা করবেন স্টিকারের কর্নারে গরম হিট দেয়ার।

৪। গরম বাতাস দিয়ে স্টিকার একটু হালকা করে নেওয়ার পর শক্ত কোন কার্ড বা ক্রেডিট কার্ড দিয়ে আস্তে করে স্টিকার তোলার ব্যাবস্থা করতে হবে। অথবা কোন কার্ড হাতের নাগালে না পেলে  নখের ডগা দিয়েও তুলে নিতে পারেন স্টিকার।

পুরানো কার্ড দিয়ে স্টিকার তোলা

৫।এরপর স্টিকারের নিচে রেজর বা ব্লেড দিয়ে ঘষে তুলে নিতে হবে।

৬।একবার স্টিকার তুলে ফেলার পর অ্যাডহেসিভ রিমুভার স্প্রে করে পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে ফেলতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে কাপড়টা যেন অবশ্যই পরিষ্কার হয়।

৭। স্টিকার যদি গ্লাসে বা উইন্ড শিল্ডে হয় তাহলে অবশ্যই সাবধানে রেজর দিয়ে তুলে নিতে হবে। তানাহলে গ্লাসে বা উইন্ড শিল্ডে স্থায়ী স্ক্র্যাচ পড়ে যাবার সম্ভাবনা থেকে যাবে।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে গাড়ির স্টিকার তোলা   

যদি আপনার হেয়ার ড্রায়ার না থাকে আর আপনার গাড়ির স্টিকার তুলে নেওয়াটা খুব জরুরী হয় তাহলে ঘরোয়া কিছু উপাদান ব্যবহার করে নিতে পারেন। এই উপাদানগুলো আপনি আপনার রান্নাঘরে পেয়ে যাবেন।  কি কি উপাদান লাগবে আসুন দেখে নেই-

উপাদান

  • ফুটন্ত গরম পানি (গরম পানিতে টাওয়েল ভিজিয়ে তারপর সরাসরি স্টিকারে ধরতে হবে)
  • হোয়াইট ভিনেগার (ফুটন্ত গরম পানির মত একই ভাবে ব্যবহার করতে পারেন)
  • রাবিং অ্যালকোহল
  • লাইটার ফ্লুয়িড
  • অ্যালকোহল জাতীয় পদার্থ
স্টিকার তুলতে প্রয়োজনীয় সব উপাদান

 

সবসময় রেজর বা অন্য কোন ধারালো কোন কিছু দিয়ে তোলা ভাল না। চুম্বকের মাধ্যমে স্টিকার তোলার পদ্ধতি খুব জনপ্রিয় একটা পদ্ধতি।  কিছু অভিজ্ঞের মতে , গাড়িতে ওয়াক্স করে এরপর স্টিকার তোলা বেশী সহজ। এতে গাড়ির উপরের ডেন্ট পেইন্ট ভালো থাকে।

গাড়ির স্টিকার তোলা নিয়ে অনেকের অনেক রকম চিন্তা থাকে । কীভাবে তুলবেন , এরপর রয়ে যাওয়া আঠার দাগ থেকে কীভাবে মুক্তি মিলবে ইত্যাদি। এসব সমস্যার সমাধানে উপরের টিপসগুলো অব্যর্থ। আপনার শখের গাড়ি পরিষ্কার রাখার সাথে সাথে গাড়ি রাখুন নিরাপদে। গাড়িতে ইন্সটল করুন প্রহরী ভেহিক্যাল ট্র্যাকিং ডিভাইস। প্রহরী সর্ব প্রথম তৈরি হয়েছে দেশীয় প্রযুক্তিতে এবং ২০ টির বেশী ফিচার নিয়ে। গাড়ির এমন মজার আর তথ্যবহুল ব্লগ পড়তে চোখ রাখুন প্রহরীর ওয়েবসাইট পেইজের বাংলা সেকশনে অথবা প্রহরীর ফেসবুক পেইজে । নিজে পড়ুন আর বন্ধুদের সাথেও শেয়ার করুন।

গাড়ির সুরক্ষায় প্রহরী সম্পর্কে জানতে

 

 

 

 

এই লেখা নিয়ে আপনার অনুভূতি কী?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

মন্তব্যসমূহ


footer-svg