গাড়ির টায়ার কালো ছাড়া অন্য রঙের হয় না কেন!

কখনো ভেবে দেখেছেন কি গাড়ির টায়ার সবসময় কালো রঙের কেন হয়?  টকটকে লাল , সবুজ বা ধবধবে সাদা কেন হয়না? সর্ব প্রথম  যে চাকা তৈরি করা হয় সেগুলো ছিল কাঠের, কার্ট আর ওয়াগনের জন্য।  যার ভেতরে লোহার ব্যান্ড দিয়ে বানানো হতো টায়ার।  প্রাকৃতিক ভাবে তৈরি রাবারের চাকার রং কিন্ত দুধের মতোন সাদাই হয়। রাবারের তৈরি চাকা প্রথম বানানো হয় ১৮৯৫ সালে, যেগুলো ছিল সাদা রংয়ের। কিন্ত কেনই বা সেসব সাদা টায়ারও এখন দেখা যায় না? দেখা গেলেও অনেক কম , সেটাই বা কেন ?

পুরনো মডেলের গারিতে সাদা টায়ার ব্যবহার করা হত।

কেন গাড়ির টায়ার কালো হয়?

গাড়ির টায়ারের রং কালো হয় মূলত ‘সুট’ এর কারণে। সুট হচ্ছে কার্বন জাতীয় জৈব, মিহি (গুড়াজাতীয়) , পদার্থ। অনেকে মনে করেন যে, এই সুট টায়ারের সাথে মিশিয়ে নিলে টায়ারের স্থায়ীত্ব বৃদ্ধি পায় , টায়ার হঠাৎ গরম হয়ে যাওয়া প্রতিহত হয় এবং টায়ার টেকসই হয়।

সে যাই হোক, বর্তমানে গাড়ির টায়ার কালো হবার কারন হচ্ছে , কালো কার্বনের রাসায়নিক যৌগ। অন্যান্য পলিমারের সাথে যোগ করে এই কার্বন টায়ারের উপরিভাগে প্রলেপের মতো দেওয়া হয়। চালক এবং প্রস্তুতকারকদের কাছে এই কালো রং অনেক বেশি কাঙ্ক্ষিত রং হয়। তারা মনে করেন এই রং চাকার স্থায়িত্ব বৃদ্ধি করে আর চাকাকে আরো বেশি শক্তিশালী করে তোলে।

টায়ারে ব্যবহৃত কার্বন ব্ল্যাক।

এধরনের কালো কার্বন টায়ারের জীবনীশক্তি বাড়ায় বলেও তারা ধারণা করে থাকেন । গাড়ি চলার সময় রাস্তার গরম থেকে চাকাকে রক্ষা করে। বিশেষ করে চাকার ট্রেড আর বেল্টের জায়গাগুলো গরম হওয়া থেকে বাঁচায় এই কালো কার্বন। অতিবেগুনী রশ্মি লাইট এবং ওজোন থেকে টায়ারকে রক্ষা করে । এছাড়া কার্বন টায়ারের গুনগত মান ঠিক রাখে। কালো রংয়ের কার্বন শুধুমাত্র টায়ারের স্থায়িত্ব আর শক্তি বাড়ায় না, আপনার গাড়ির চালানোর সময়ও গাড়ির সুরক্ষাও নিশ্চিত করে। টায়ারের স্থায়িত্ব যত বাড়বে আপনার ড্রাইভিংও ততো নিরাপদ হবে। গাড়ির গতি বৃদ্ধি বা সমানভাবে ব্রেক করার জন্য মজবুত টায়ার অতিব জরুরী । মনে রাখবেন, গাড়ির টায়ার মজবুত না হলে গাড়ির নিয়ন্ত্রণে সমস্যার সৃষ্টি হয়। আর  এসব নানা কারনে কালো রংয়ের গাড়ির টায়ার খুব বেশি জনপ্রিয় এবং বহুল ব্যবহৃত।

সাধারণ টায়ার কি সাদা করা যায় ?

জিংক অক্সাইড আর টিটেনিয়াম ডাইঅক্সাইড যোগ করে টায়ারের রং সাদা করে নেওয়া যায়। কিন্ত সাদা রংয়ের টায়ার খুব বেশি একটা মজবুত আর টেকসই হয় না। এবং আমাদের আশেপাশে বাতাসে থাকা সালফারের কারনে সাদা টায়ার তাড়াতাড়ি ধূসর বর্ণ ধারণ করে। আরেকটি অসুবিধা হচ্ছে, সাদা টায়ার খুব তাড়াতাড়ি ময়লা হয়ে যায় আর পরিস্কার করতেও অনেক অসুবিধার সৃষ্টি হয়। আপনি হয়তোবা সাদা টায়ার পুরানো বা ক্লাসিক গাড়ির চাকায় দেখে থাকবেন কিন্ত কালো রংয়ের টায়ার বেশি বাস্তব জ্ঞান বহন করে। অর্থাৎ বেশি কার্যকরী ও আধুনিক হয়।

আসুন দেখে নেই গাড়ির টায়ার কালো হবার কিছু সুবিধা

  • কালো টায়ার প্রতিনিয়ত ব্যবহারপযোগী।
  • ময়লা বা জীর্ন হলেও বোঝা যায়না।
  • দেখতে মলিন হলেও, সহজেই পরিষ্কার যোগ্য।
  • গাড়ির টায়ার কালো হলে সেটি মজবুত ও অন্যান্য রংয়ের টায়ার থেকে বেশি শক্ত হয়।
  • কালো টায়ারগুলোর আকার , আকৃতি ঠিক থাকে। রাস্তায় গাড়ি সমানভাবে চলতে সাহায্য করে।
  • চাকার স্থায়িত্ব বা নিশ্চিন্ত গাড়ি চালনায় কালো টায়ারের জুড়ি নেই।
  • সাসপেন্সন ঠিক রাখে।
  • গরম ও অতিরিক্ত তাপমাত্রা থেকে চাকাকে রক্ষা করে।
  • সহজেই পুনঃ উৎপাদন করা সম্ভব।
  • কম দামী এবং সহজপ্রাপ্য ও সার্বজনীন।
  • গাড়ি চালানোর সময় আরামদায়ক অনুভূতি দেয়।
গাড়ির জন্য কালো টায়ারই সবচাইতে বেশি উপযোগী।

শুধু সৌন্দর্য্য বৃদ্ধির জন্য সাদা টায়ার ব্যবহার করাটা মোটেও যুক্তিযুক্ত নয়। যদি একান্তই সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করতে চান তাহলে আপনি আপনার কালো টায়ারের উপরে রং-তুলি দিয়ে নিজেই রিমস আর হাবক্যাপের উপর নকশা করে টায়ার আকর্ষণীয় করে তুলতে পারেন। বা গাড়ির পার্টসের দোকান থেকে কাস্টমাইজ টায়ার তৈরি করিয়ে নিতে পারেন।

গাড়ির টায়ার ছাড়াও যেকোন টিপস আর ট্রিকস সম্পর্কে জানতে প্রহরীর বাংলা গল্প পড়ুন।

গাড়ির সুরক্ষায় প্রহরী সম্পর্কে জানতে

এই লেখা নিয়ে আপনার অনুভূতি কী?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

মন্তব্যসমূহ


footer-svg